• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ১৪-৯-২০২৩, সময়ঃ রাত ০৭:৩৯

সাঘাটায় ছুরিকাঘাতে আহত ১

সাঘাটায় ছুরিকাঘাতে আহত ১

সাঘাটা প্রতিনিধি►

সাঘাটায় অবাধে অবৈধ চুল্লিতে কাঠ পুড়িয়ে এলাকার পরিবেশ দূষন করতে নিষেধ করায় চুল্লির মালিক পক্ষের অস্ত্রের আঘাতে জিল্লুর রহমান নামে একজন গুরুতরভাবে আহত হয়েছে।

আহত জিল্লুরকে প্রথমে সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে গোবিন্দগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এই নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনায় সাঘাটা থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে। 

জানা যায়, উপজেলার কিংকরপুর গ্রামের রায়হান নামের এক অবৈধ কয়লা ব্যবসায়ীর নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল অবৈধভাবে অর্থ উপার্জনের উদ্দেশ্যে জনবসতি এলাকায় কয়লা তৈরীর চুল্লি স্থাপন করে সেখানে অবাধে কাঠ পুড়িয়ে কয়লা তৈরী করতে থাকে। এসব চুল্লির নির্গত ধূঁয়ায় তীব্র গরম ও এলাকার আশেপাশের পরিবেশ দুষণ হয়ে ওঠে । ফলে আশেপাশের লোকজনের পক্ষে বসবাস করা দুরহ ব্যাপার হয়ে দাড়ায়। 

এতে ভুক্তভোগি এলাকার ওই সব লোকজন কয়লা তৈরীর কাজে বাঁধা নিষেধ করতে থাকে। কিন্তু চুল্লির মালিকরা স্থানীয় ভুক্তভোগি লোকজনের কথার তোয়াক্কা না করে উল্টো তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন ধরণের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করতে থাকে। ইতিমধ্যেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উপজেলার  সকল অবৈধ কয়লার চুল্লি গুলি বন্ধের নির্দেশ প্রদান করে সকলকে চিঠি দেন।  এতে রায়হান ও তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে সংঘবদ্ধভাবে স্থানীয় আব্দুল খালেক প্রতিপক্ষ মনে করে তার বাড়িতে গিয়ে তাকে এবং খালেকের পরিবারকে উদ্দেশ্য করে বিভিন্ন গালিগালাজ করিতে থাকে এ সময় খালেক প্রতিবাদ করলে রায়হান তার লোকজনসহ খালেকের উপর হামলা করে।

এ সময় খালেকের স্বজন জিল্লুরসহ বাড়ির লোকজন তাকে রক্ষা করতে গেলে তাকে রায়হানের পক্ষের লোকজন ধারালো ছুরি দিয়ে জিল্লুরকে রক্তাক্ত যখম করা হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় জিল্লুরকে প্রথমে সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে তাকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে খালেক বাদী হয়ে সাঘাটা থানায় এজাহার দায়ের করে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়