• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ১৬-৯-২০২৩, সময়ঃ বিকাল ০৩:৪১
  • ১৯৯ বার দেখা হয়েছে

সরকারের পতন ঘটিয়েই জনতার আন্দোলন শেষ হবে- মির্জা ফখরুল

সরকারের পতন ঘটিয়েই জনতার আন্দোলন শেষ হবে- মির্জা ফখরুল

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি►

রোডমার্চের মধ্যদিয়ে সরকারের পতন ঘটিয়েই জনতার আন্দোলন শেষ হবে এবং তা খুব অল্প সময়ের মধ্যেই হবে। কারণ স্বৈরাচারের বিদায়ের আভাস এখন অত্যন্ত পরিষ্কার হয়ে গেছে। এমন মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তারুণ্যের রোডমার্চ করে রংপুর থেকে দিনাজপুরে যাওয়ার পথে সৈয়দপুরে আয়োজিত পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আজ শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে বেলা ১২ টা থেকে দুইটা পর্যন্ত এই পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল, স্বেচ্ছা সেবক দল ও ছাত্রদল সৈয়দপুর রাজনৈতিক জেলা কমিটি যৌথভাবে এর আয়োজন করে।

প্রায় পাঁচ শতাধিক মাইক্রোবাস-পিকআপ, সহস্রাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে রংপুর থেকে রংপুর, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম ও গাইবান্ধা জেলার নেতাকর্মী রোডমার্চের বহর রংপুর থেকে বেলা দেড়টায় সৈয়দপুরে এসে পৌঁছে। পরে এখান থেকে নীলফামারী, কিশোরগঞ্জ ও সৈয়দপুর এবং পার্বতীপুর উপজেলার নেতাকর্মীরা বহরে যোগদেয়।

সৈয়দপুরে বিএনপি'র মহাসচিব আরও বলেন, এখন সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই। গণজোয়ারে টালমাটাল হয়ে ভাসমান অবস্থায় ফ্যাসিস্ট হাসিনার আওয়ামীলীগ। গণতন্ত্র হত্যাকারী বাকশালীদের কদর্য চেহারা আজ সারা বিশ্বের কাছে স্পষ্ট হয়ে পড়েছে। যে কারণে দেশ-বিদেশে তাদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ও ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। ফলে বন্ধুহীন হয়ে পড়েছে লুটেরারা। 

মীর্জা ফখরুল বলেন, সারাদেশের মানুষ জেগে উঠেছে। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে একাত্ম হয়েছে দেশের সব গণতন্ত্রমনা দল। বিদেশী দাতা ও শক্তিধর রাষ্ট্রগুলো এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাসমুহ নিয়মতান্ত্রিকভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর তথা সহিংসতা এড়িয়ে শান্তিপূর্ণ উপায়ে ক্ষমতার পালাবদলের আহ্বান জানাচ্ছে। কারণ শেখ হাসিনার অধীনে কখনই সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। এজন্য পদত্যাগ করে নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক বা নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ভোট গ্রহনের ব্যবস্থা নিতে হবে।

তিনি বলেন, এই আহ্বানের পরও যদি সোজা কথায় হাসিনার হুশ না হয়, তাহলে রাজপথেই ফয়সালা হবে। সময় ফুরিয়ে গেছে। পালাবার পথও পাবেনা। এখন শুধু ঐক্যবদ্ধ থেকে আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। জয় আমাদেরই হবে। এজন্য তিনি দলমত নির্বিশেষে সকলকে সজাগ ও সক্রিয় থাকার আহবান জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি'র রংপুর বিভাগীয় যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেক এবং যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক ও দিনাজপুর পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর হোসেন, যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোঃ সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম মিল্টন, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) মো: রাসেদ ইকবাল খান, সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাইফ মাহমুদ জুয়েল।

স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি এস এম জিলানী, সাধারণ সম্পাদক, মোঃ রাজিব আহসান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ নাজমুল হাসান, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিন, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম খান বাবুল ও জলবায়ু বিষয়ক সম্পাদক লায়ন আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম বিদ্যুত প্রমুখ।

পথসভায় সভাপতিত্ব করেন সৈয়দপুর জেলা বিএনপি'র সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যক্ষ আব্দুল গফুর সরকার। জেলা স্বেচ্ছা সেবক দলের সভাপতি এরশাদ হোসেন পাপ্পুর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন,  কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি বিলকিস ইসলাম, সৈয়দপুর জেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক শাহীন আকতার, সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন প্রামাণিক, সিনিয়র নেতা এ্যাডভোকেট এস এম ওবায়দুর রহমান, জিয়াউল হক জিয়া, সামসুল আলম সরকার।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন জেলা যুবদল আহবায়ক তারিক আজিজ, সৈয়দপুর পৌর বিএনপি'র সভাপতি আলহাজ্ব রশিদুল হক সরকার, সাধারণ সম্পাদক শেখ বাবলু, উপজেলা সভাপতি রেজাউল করিম লোকমান, সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান কার্জন, কিশোরগঞ্জ উপজেলা সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন  সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়